বেতন পাবেন জাতীয় দলের ফুটবলারা!

অবশেষে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন থেকে বেতন পেতে যাচ্ছেন জাতীয় দলের ফুটবলাররা। আজ (বৃহস্পতিবার) বাফুফে ভবনে কাতারে যেতে না পারা ৫ ফুটবলারের সাথে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনায় বসেন বাফুফে সভাপতি। সভা শেষে বিষয়টি জানিয়েছেন কাজী সালাউদ্দিন। উক্ত সভায় উপস্থিত ছিলেন আশরাফুল রানা, সাদ উদ্দিন, বিশ্বনাথ ঘোষ, মাহাবুবুর রহমান সুফিল ও টুটুল হাসান বাদশা সহ জাতীয় দল কমিটির চেয়ারম্যান।

বর্তমানে জাতীয় দলের স্কোয়াডে যারা রয়েছেন তারা পারশ্রমিক হিসেবে কোন টাকা পান না, তবে সম্মানি হিসেবে বাফুফে থেকে কিছু টাকা দেওয়া হয়। তবে আগামী সিজন থেকে ৩০ ফুটবলারকে বেতনের আওতাভুক্ত করতে চান বাফুফে সভাপতি। তবে এখন পর্যন্ত এটা পরিকল্পনাধীন, কাতার থেকে ফুটবলাররা দেশে ফিরলে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানানো হবে। এছাড়া তিনি আরো জানিয়েছেন,

“ ৩০ জনকে তিন গ্রেডে ভাগ করা হবে। প্রথম ১৫ জনে দুই জন গোলকিপার থাকবে, এরপরের গ্রেডে দশ জন এবং পরের গ্রেডে ৫ জন। পার্ফরমেন্স করতে না পারলে গ্রেড অবনমন হবে এবং জাতীয় দলের স্কোয়াডে না থাকতে পারলে লিস্ট থেকেই বাদ পড়বে।”

ক্রিকেট বাদে অন্যান্য খেলাধুলার চেয়ে বাংলাদেশের ফুটবলাররা বেশ ভাল টাকা আয় করে থাকে। তবে এটা নাকি জীবনযাপনের জন্য যথেষ্ঠ নয় বলে জানান কাজী সালাউদ্দিন। আরো বলেন,

“‘সবার আয় সমান নয়। জাতীয় ফুটবলারদের সামাজিক কর্মকান্ড,থাকা-খাওয়া সহ পারিবারিক অনেক ব্যয় রয়েছে। একটা মিনিমাম স্ট্যান্ডার্ডের জন্য অবশ্যই অর্থ প্রয়োজন। যে কারনেই তাদেরকে একটা বেতনের মধ্যে আনতে চাচ্ছি।”

এছাড়া কাজী সালাউদ্দিনের মতে বেতন কাঠামো থাকলে সবাই জাতীয় দলে খেলার প্রতি আকৃষ্ট হবে, সেই সাথে প্রতিদ্বন্দ্বীতাও বাড়বে। সাধারণত ইউরোপিয়ান বা অন্যান্য অঞ্চলের ফুটবলে জাতীয় দলের ফুটবলাররা কোন বেতন পান না। তবে কেন বাংলাদেশের ফুটবলাররা বেতন পাবে এমন প্রশ্নের জবাবে কাজী সালাউদ্দিন বলেন,

“ইউরোপের ফুটবলাররা অধিকাংশই সপ্তাহে দুই কোটির মত আয় করে, অনেকে এর থেকেও বেশি করে। যে কারনেই তাদের জাতীয় দল থেকে কোন টাকার দরকার পরে না। কিন্তু আমাদের দেশে তা নয়।”

আগামী ২২ জুন থেকে মাঠে গড়াবে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের বাকি অংশ। লিগে পার্ফরমেন্স করা ফুটবলারদেরকেই জাতীয় দলের এই ৩০ জনের স্কোয়াডে রাখা হবে বলে জানান কাজী সালাউদ্দিন। এই ৩০ ফুটবলার বাছাই করার দায়িত্বে থাকবেন বিদেশি টেকনিকেল কমিটি এবং সাথে দুই একজন দেশি কেউ থাকতে পারে। তবে এটা বাস্তবায়িত করতে টেকনিকেল কমিটি প্রায় নয় মাস কাজ করবে বলে জানান বাফুফে বস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *