হাই ভোল্টেজ ম্যাচে মুশফিক ও মুনিমের ব্যাটিং ঝড়ে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়ল আবাহনী

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের সুপার লিগের হাই ভোল্টেজ ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে আবাহনী লিমিটেড ও মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে মোহামেডানকে বিশাল লক্ষ্য ছুঁড়ে দিয়েছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আবাহনী।

সুপার লিগের ঢাকা ডার্বি জিততে হলে মোহামেডানকে করতে হবে ১৯৩ রান। আবাহনীর সংগ্রহ করা ১৯২ রান এবারের টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহের রেকর্ড। ‘হোম অব ক্রিকেট’ খ্যাত মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন মোহামেডান অধিনায়ক শুভাগত হোম। ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই লিটন দাসকে হারিয়ে ফেলে আবাহনী। চলতি ডিপিএলে নিজের প্রথম ম্যাচে ৭ বলে ৪ রান করে রুয়েল মিয়ার বলে এলবিডব্লিউ হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি।

তবে আবাহনী খেই হারায়নি। চমক দেখানো ওপেনার মুনিম শাহরিয়ারের ব্যাট এদিনও ছিল চওড়া। ২৭ বলের মোকাবেলায় ৫টি চার ও ২টি ছক্কা হাঁকিয়ে ৪৩ রান করে ফেরেন সাজঘরে। তার আগে অবশ্য সাজঘরে ফিরতে হয় নাজমুল হোসেন শান্তকে। ১৭ বলে ২৭ রান করা শান্ত এদিন হাঁকিয়েছেন তিনটি ছক্কা।

চতুর্থ উইকেটে দলের হাল ধরেন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ও নাঈম শেখ। আবাহনীর আগের জয়ের নায়ক নাঈম ভয়ংকর হয়ে ওঠার আগে ইরফান শুক্কুরের স্ট্যাম্পিংয়ে আউট হয়ে গেলে ভাঙে দুজনের ৫৪ রানের পার্টনারশিপ। সাজঘরে ফেরার আগে ১৮ বলে ২৪ রান করেন ২টি চার ও ১টি ছক্কায়।

১৫ ওভার শেষে ৪ উইকেট হারিয়ে আবাহনীর সংগ্রহে ছিল ১৩২ রান। পরের ৩ ওভারে দলটি জড়ো করে আরও ৬০ রান। এতে মূল ভূমিকা ছিল মুশফিকের। শেষপর্যন্ত অপরাজিত থেকেই মাঠ ছাড়েন মুশফিক, তার আগে ৩৩ বলে ৫৮ রান করে অপরাজিত থাকেন ৮টি চার ও ১টি ছক্কা হাঁকানো এই তারকা। অন্যান্যদের মধ্যে আফিফ হোসেন ধ্রুব ৯ বলে ১০ ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ৭ বলে ১৪ রান করেন। নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে আবাহনীর সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৯২ রান, ৭ উইকেট হারিয়ে।

মোহামেডানের পক্ষে মাত্র ১৯ রানের খরচায় ৩ উইকেট শিকার করেন রুয়েল মিয়া। আসিফ হাসানও পেয়েছেন তিনটি উইকেট, তবে খরচ করেছেন ৪৭ রান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

টস : মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব

আবাহনী লিমিটেড : ১৯২/৭ (২০ ওভার)আবাহনী ৫৮* মুনিম ৪৩, শান্ত ২৭রুয়েল ১৯/৩, আসিফ ৪৭/৩

জয়ের জন্য মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের প্রয়োজন ১৯৩ রান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *